মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

গ্রাম আদালতের ধারা সমূহ

ধারা- ৩৫২

গুরুতর প্ররোচনা ব্যতীত আক্রমণ কিংবা অপরাধজনক বলপ্রয়োগের শাস্তিঃ

মারাত্মক ও আকষ্মিক প্ররোচনা ব্যতীত যদি কেহ কাহাকেও আঘাত করে বা তাহার উপর অপরাধজনক বল প্রয়োগ করে তাহা হইলে সে তিন মাস পর্যন্ত যে কোন মেয়াদের সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে কিংবা পাচশত টাকা পর্যন্ত যেকোন পরিমাণ অর্থদন্ডে কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ব্যাখ্যাঃ

মারাত্মক আকষ্মিক প্ররোচনা এই ধারা অনুসারে কোন অপরাধে বিহিত দন্ড লাঘব করিবে না যদি-

প্ররোচনাটি অপরাধী অজুহাত স্বরূপ স্বয়ং কামনা করিয়া থাকে বা স্বেচ্ছায় উহার উস্কানি দিয়া থাকে, কিংবা প্ররোচনাটি মান্য করিয়া অনুষ্ঠিত কোন কার্যের ফলে অথবা কোন সরকারী কর্মচারী কর্তৃক আইনানুসারে উক্ত সরকারী কর্মচারীর ক্ষমতা প্রয়োগ করিয়া অনুষ্ঠিত কোন কার্যের ফলে ঘটিয়া থাকে, কিংবা আত্মরক্ষার ব্যক্তিগত অধিকারের আইন সম্মত প্রয়োগ করিয়া কৃত কোন কার্যের ফলে প্ররোচনাটি ঘটিয়া থাকে।

প্ররোচনাটি এমন মারাত্মক ও আকষ্মিক ছিল কিনা তাহার ফলে দন্ড লাঘব হইতে পারে, তাহা ঘটনাগত প্রশ্ন।

ধারা- ৩৫৮

মারাত্নক প্ররোচনার ফলে আক্রমণ করা কিংবা অপরাধজনক বলপ্রয়োগ করা-

যদি কোন ব্যক্তি অপর কোন ব্যক্তির মারাত্নক প্ররোচনায় ক্ষিপ্ত হইয়া সেই ব্যক্তিকে আঘাত করে কিংবা তাহার উপর অপরাধজনক ভাবে বলপ্রয়োগ করে, তাহা হইলে সে এক মাস পর্যন্ত যে কোন মেয়াদের সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে কিংবা দুইশত টাকা পর্যন্ত যে কোন পরিমাণ অর্থদন্ডে কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ব্যাখ্যাঃ

উপরের ধারাটি ৩৫২ ধারা অনুরূপ ব্যাখ্যা সাপেক্ষে।

ধারা- ৫০৪

শান্তিভঙ্গের উদ্দেশ্যে ইচ্ছাকৃতভাবে প্ররোচনা বা অপমান করা।–

যদি কোন ব্যক্তি ইচ্ছাকৃতভাবে অপর োকন ব্যক্তিকে অপমান করে এবং তদ্বারা তাহাকে প্ররোচনা দান করে এবং অনুরূপ প্ররোচনার ফলে যাহাতে সেই ব্যক্তি শান্তিভঙ্গ বা অন্য কোন অপরাধ করে, তদুদ্দেশ্যে অথবা অনুরূপ প্ররোচনার ফলে সেই ব্যক্তি শান্তিভঙ্গ করিতে পারে বা অন্য কোন অপরাধ করিতে পারে বলিয়া জানা সত্ত্বেও যদি তাহা করে, তাহা হইলে সেই ব্যক্তি দুই বৎসর পর্যন্ত যে কোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে কিংবা অর্থদন্ডে কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৫০৬ (প্রথম অংশ)

অপরাধজনক ভীতি প্রদর্শনের শাস্তি।–

যদি কোন ব্যক্তি অপরাধজনক ভীতি প্রদর্শন করে, তাহা হইলে সেই ব্যক্তি দুই বৎসর পর্যন্ত যে কোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে কিংবা অর্থদন্ডে কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৫০৮

কোন ব্যক্তিকে বিধাতার বিরাগভাজন হইবে এইরূপ বিশ্বাস জন্মাইয়অ কোন কাজ করানোর শাস্তি।–

যদি কোন ব্যক্তি কাহাকেও এরূপ বিশ্বাস করায় যে, সে যে কার্যটি করিতে আইনতঃ বাধ্য নয়, সে কার্যটি যদি সে না করে, কিংবা যে কার্য করিতে আইনতঃ বাধ্য সে কার্যটি করা হইতে বিরত হয়, তাহা হইলে প্রথমোক্ত ব্যক্তি স্বীয় কোন কার্য দ্বারা তাহাকে বা তাহার স্বার্থসংশ্লিষ্ট, অন্য কোন ব্যক্তিকে বিধাতার রোষানলে পতিত করিবে এবং ইচ্ছাপূর্বক এইরূপ বিশ্বাস সৃষ্টি করিয়া তাহাকে দিয়া উদ্দিষ্ট কার্যটি করায় বা করা হইতে বিরত রাখে কিংবা করাইবার, বা করা হইতে বিরত রাখিবার চেষ্টা করে, তাহা হইলে সে ব্যক্তি এক বৎসর পর্যন্ত যেকোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে কিংবা অর্থদন্ডে কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৫০৯

মাতাল ব্যক্তির প্রকাশ্যে অসদাচরণের শাস্তি।–

যদি কোন ব্যক্তি নেশাগ্রস্থ অবস্থায় কোন প্রকাশ্য স্থানে গমন কর, বা কোন স্থানে অনধিকার প্রবেশ করে এবং এমন আচরণ করে, যাহার ফলে কাহারও বিরুক্তি ঘটে, তাহা হইলে সেই ব্যক্তি চব্বিশ ঘন্টা পর্যন্ত যেকোন মেয়াদে বিনাশ্রম কারাদন্ডে কিংবা দশ টাকা পর্যন্ত যেকোন পরিমাণ অর্থদন্ডে কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৩৭৯

চুরির শাস্তি।–

যদি কোন ব্যক্তি চুরি করে, তাহা হইলে সেই ব্যক্তি তিন বৎসর পর্যন্ত যেকোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে কিংবা অর্থদন্ডে কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৩৮০

বাসগৃহ ইত্যাদিতে চুরি।–

যদি কোন ব্যক্তি কোন গৃহ, তাবু বা জলযানে চুরি করে, যে গৃহ, তাবু বা জলযানে মানুষের বাসস্থান হিসাবে ব্যবহৃত হয় কিংবা সম্পত্তি হেফাজতের জন্য ব্যবহৃত হয় তাহা হইলে সে সাত বৎসর পর্যন্ত যে কোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে এবং অর্থদন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৩৮১

কর্মচারী বা চাকর কর্তৃক মালিকের দখলভূক্ত সম্পত্তি চুরির শাস্তি।–

যদি কোন ব্যক্তি কর্মচারী বা ভৃত্য হওয়া সত্ত্বেও, কিংবা কর্মচারী বা ভৃত্যের কাজে নিয়োজিত হওয়া সত্ত্বেও তাহার প্রভুর বা মালিকের দখলভুক্ত সম্পত্তি চুরি করে, তাহা হইলে সেই ব্যক্তি সাত বৎসর পর্যন্ত যেকোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে এবং অর্থদন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৪০৩

অসাধুভাবে সম্পত্তি তসরূপের শাস্তি।–

যদি কোন ব্যক্তি অসাধুভাবে কোন অস্থাবর সম্পত্তি তসরূপ করে কিংবা উহা তাহার নিজের ব্যবহারে প্রয়োগ করে, তাহা হইলে সে ব্যক্তি দুই বৎসর পর্যন্ত যেকোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে কিংবা অর্থদন্ডে কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৪০৬

অপরাধজনক বিশ্বাসভঙ্গের শাস্তি।–

যদি কোন ব্যক্তি অপরাধজনক বিশ্বাসভঙ্গ করে, তাহা হইতে সে তিন বৎসর পর্যন্ত যেকোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে এবং অর্থদন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৪১৭

প্রতারণার শাস্তি।–

যদি ব্যক্তি প্রতারণা করে, তাহা হইলে সে ব্যক্তি এক বৎসর পর্যন্ত যে কোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে এবং অর্থদন্ডে কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৪২০

প্রতারণা ও অসাধুভাবে সম্পত্তি অর্পন করিতে প্রবৃত্ত করার শাস্তি।–

যদি কোন ব্যক্তি প্রতারণা করে এবং প্রতারিত ব্যক্তিকে অসাধুভাবে অন্য কোন ব্যক্তিকে কোন সম্পত্তি প্রদানে প্রবৃত্ত করে, কিংবা অসাধুভাবে প্রতারিত ব্যক্তিকে কোন মূল্যবান জামানতের সমুদয় বা অংশ বিশেষ প্রণয়ন, পরিবর্তন বা বিনাশসাধনে প্রবৃত্ত করে, কিংবা অসাধুভাবে প্রতারিত ব্যক্তিকে জামানত হিসাবে রুপান্তরযোগ্য কোন স্বাক্ষরিত বা সীল-মোহরযুক্ত বস্তুর সমুদয় বা অংশ বিশেষ প্রনয়ন, পরিবর্তন বা বিনাশসাধনের প্রবৃত্ত করে তাহা হইলে সেইব্যক্তি সাত বৎসর পর্যন্ত যে কোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে এবং অর্থদন্ডেও দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৪২৭

অনিষ্ট করিয়া পঞ্চাশ টাকা বা উহার অধিক ক্ষতিসাধনের শাস্তি।–

যদি কোন ব্যক্তি অনিষ্ট সাধন করে এবং তদ্বারা পঞ্চাশ টাকা বা তদূর্ধ্ব পরিমাণ অর্থের ক্ষতি করে, তাহা হইলে সেই ব্যক্তি দুই বৎসর পর্যন্ত যে কোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে বা অর্থদন্ডে কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৪২৮

দশ টাকা বা তদউর্দ্ধ মূল্যের পশু হত্যা বিকলাঙ্গ করিয়া অনিষ্টসাধনের শাস্তি।–

যদি কোন ব্যক্তি দশ টাকা বা তদুর্দ্ধ মূল্যের কোন একটি বা একাধিক পশু হত্যা করিয়া, বিষ প্রয়োগ করিয়া, বিকলাঙ্গ করিয়া বা অকেজো করিয়া অনিষ্ট সাধন করে, তাহা হইলে সে দুই বৎসর পর্যন্ত যে কোন মেয়াদে সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ড বা অর্থদন্ডে, কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হইবে।

ধারা- ৪২৯

যে কোন মূল্যের গবাদি পশু ইত্যাদি অথবা পঞ্চাশ টাকার মূল্যের পশুকে হত্যা বা বিকলাঙ্গ করিয়া অনিষ্টসাধনের শাস্তি।–

যদি কোন ব্যক্তি যেকোন মূল্যের হাতী, উট, ঘোড়া, খচ্চর, মহিষ, ষাড়, গাভী বা গরু, কিংবা পঞ্চাশ টাকা বা তদুর্দ্ধ মূল্যের অন্য কোন পশুকে হত্যা করিয়া, বিষ প্রয়োগ করিয়া, বিকলাঙ্গ করিয়া বা অকেজো করিয়া অনিষ্টসাধন করে, তাহা হইলে সেই ব্যক্তি পাচ বৎসর পর্যন্ত যে কোন মেয়াদের সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদন্ডে বা অর্থদন্ডে কিংবা উভয় দন্ডেই দন্ডনীয় হইবে।